বছরের শুরুতে নেসাবের মালিক ব্যক্তি বছর শেষে ফকীর হয়ে গেলে আংশিক যাকাত আদায় করতে হবে?

প্রশ্ন

জামান সাহেবের কাছে বছরের ৯ মাস (গত ১৫ জুন-২০১৭ থেকে ১৫ মার্চ ২০১৮ পর্যন্ত) প্রায় ৭০০০০০/ (সাত লাখ) টাকা মূল্যের নগদ টাকা ও সম্পদ ছিল । কিন্তু সে সমুদয় টাকা দিয়ে (১৫ মার্চ ২০১৮ তারিখে) বাড়ী করার জন্য জমি ক্রয় করে। এখন তার কাছে নিসাব পরিমাণ নগদ টাকা/ সম্পদ নেই। গত বছর জুন-২০১৭ মাস ভিত্তিক) ওই টাকার উপর সে যাকাত আদায় করেছে । এ বছর ওই ৯ মাস (গত জুন-২০১৭ থেকে মার্চ ২০১৮ পর্যন্ত) উক্ত ৭০০০০০/- টাকার উপর আংশিক যাকাত দিতে হবে কীনা ?

আপনাদের মূল্যবান উত্তরের অপেক্ষায় রইলাম

মা’আসসালাম

মুহাম্মদ মিজান ফরাজী

উত্তর

بسم الله الرحمن الرحيم

যাকাত আদায় আবশ্যক হবার জন্য নেসাব পরিমাণ সম্পদ এক বছর ব্যক্তির কাছে থাকা আবশ্যক। যেহেতু জামান সাহেবের কাছে বছরান্তে নেসাব পরিমাণ টাকা বিদ্যমান নেই। তাই তার উপর এখন আর যাকাত আবশ্য নেই। তাই আংশিক বা পূর্ণ কোন যাকাতই বর্তমানে তার উপর আবশ্যক নয়।

عَنْ عَائِشَةَ، قَالَتْ: سَمِعْتُ رَسُول اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ يَقُولُ: «لَا زَكَاةَ فِي مَالٍ حَتَّى يَحُولَ عَلَيْهِ الْحَوْلُ»

হযরত আয়শা রাঃ থেকে বর্ণিত। রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেছেন, বছর অতিক্রান্ত না হলে কোন মালের উপর যাকাত আবশ্যক হয় না। [সুনানে ইবনে মাজাহ-১/১২৮ হাদীস নং-১৭৯২, সুনানে আবু দাউদ, হাদীস নং-১৫৭৩, সুনানে তিরমিজী, হাদীস নং-৬৩১]

(وَشَرْطُ كَمَالِ النِّصَابِ) وَلَوْ سَائِمَةً (فِي طَرَفَيْ الْحَوْلِ) فِي الِابْتِدَاءِ لِلِانْعِقَادِ وَفِي الِانْتِهَاءِ لِلْوُجُوبِ (فَلَا يَضُرُّ نُقْصَانُهُ بَيْنَهُمَا) فَلَوْ هَلَكَ كُلُّهُ بَطَلَ الْحَوْلُ. (رد المحتار، كتاب الزكاة، باب زكاة المال-3/233)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *